পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে অভিকর্ষজ ত্বরণ বিভিন্ন হয় কেন – ব্যাখ্যা কর।

আপনাদের জন্য আমাদের এখানে আজকে ৮ম শ্রেণীর বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্নের উত্তর প্রকাশ করা হয়েছে ছবিগুলো পিডিএফ ফাইল আকারে। সুতরাং আপনি আমাদের এখান থেকে খুব সহজেই আপনাদের বিজ্ঞান অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্নের উত্তর ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

আপনাদের মধ্যে অনেক শিক্ষার্থী ৮ম শ্রেণীর বিজ্ঞান এসাইনমেন্ট এর উত্তর খোঁজেন। তাদের জন্য আমাদের এই পোস্ট এ আপনাদের বিজ্ঞানে অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্নের উত্তর প্রকাশ করা হয়েছে। আপনাদের বিজ্ঞানে অ্যাসাইনমেন্ট প্রশ্নটি হল পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে অভিকর্ষজ ত্বরণ বিভিন্ন হয় কেন – ব্যাখ্যা কর।

আমাদের এখান থেকে আপনি আপনাদের অ্যাসাইনমেন্ট এর উত্তর নিশ্চিন্তে ডাউনলোড করে নিতে পারেন। কারণ আমাদের অভিজ্ঞ শিক্ষক দ্বারা আপনাদের এই অ্যাসাইনমেন্ট এর প্রশ্নের উত্তর সমাধান করা হয়ে থাকে। সুতরাং এখনই আপনাদের অ্যাসাইনমেন্ট এর উত্তরটি ডাউনলোড করে নিন।

পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে অভিকর্ষজ ত্বরণ বিভিন্ন হয় কেন

আপনাদের মধ্যে অনেক শিক্ষার্থীরা অষ্টম শ্রেণির বিজ্ঞান প্রশ্ন পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে অভিকর্ষজ ত্বরণ বিভিন্ন হয় কেন? এটি জানতে চেয়েছেন। এখন আমরা নিচে আলোচনা করতে যাচ্ছি যে, পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে অভিকর্ষজ ত্বরণের তারতম্য হওয়ার পেছনের কারণ।

প্রশ্ন: পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে অভিকর্ষজ ত্বরন বিভিন্ন হয় কেন? ব্যাখ্যা কর ।

উত্তর: পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে অভিকর্ষজ ত্বরণ ও বস্তুর ওজন বস্তুর ওজন অভিকর্ষজ ত্বরণ g এর উপর নির্ভরশীল। সুতরাং যে সকল কারণে অভিকর্ষজ ত্বরণের পরিবর্তন ঘটে | সে সকল কারণে বস্তুর ওজনও পরিবর্তিত হয়। বস্তুর ওজন বস্তুর মৌলিক ধর্ম নয়। স্থানভেদে বস্তুর ওজনের পরিবর্তন হয়। যে সকল কারণে ওজনের পরিবর্তন হয় নিচে তা বর্ণনা করা হলাে।

(ক) ভূ-পৃষ্ঠের বিভিন্ন স্থানে: পৃথিবীর আকৃতি ও আহ্নিক গতির জন্য বিভিন্ন স্থানে বস্তুর ওজন বিভিন্ন হয়।

(১) পৃথিবীর আকৃতির জন্য: পৃথিবী সুষম গােলক না হওয়ায় পৃথিবীর কেন্দ্র থেকে ভূপৃষ্ঠের সকল স্থান সমদূরে নয়। যেহেতু g এর মান পৃথিবীর কেন্দ্র থেকে দূরত্বের উপর নির্ভর করে, তাই পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে g এর মানের পরিবর্তন হয়। বিষুবীয় অঞ্চলে পৃথিবীর ব্যাসার্ধ সবচেয়ে বেশি হওয়ায় g এর মান সবচেয়ে কম (৯.৭৮ মিটার/সেকেন্ড২)।

সুতরাং বিষুবীয় অঞ্চলে কোনাে বস্তুর ওজন সবচেয়ে কম হয়। বিষুবীয় অঞ্চল থেকে মেরু অঞ্চলের দিকে যত যাওয়া যায়, ব্যাসার্ধ তত কমতে থাকে এবং g এর মান বাড়তে থাকে (৯.৮৩ মিটার/সেকেন্ড২) । এর ফলে বস্তুর ওজনও বাড়তে থাকে। মেরু অঞ্চলে পৃথিবীর ব্যাসার্ধ সবচেয়ে কম হওয়ায় g এর মান মেরু অঞ্চলে সবচেয়ে বেশি। ফলে ওজনও সবচেয়ে বেশি হয়।

(২) পৃথিবীর আহ্নিক গতির জন্য: পৃথিবীর আহ্নিক গতির জন্য অভিকর্ষজ ত্বরণ বিষুবীয় অঞ্চল থেকে মেরু অঞ্চলের দিকে ক্রমশ বৃদ্ধি পায়। এর ফলে বস্তুর ওজনও বৃদ্ধি পায়।

(খ) ভূপৃষ্ঠ থেকে উচ্চতর কোনাে স্থানে: ভূপৃষ্ঠ থেকে যত উপরে উঠা যায় অভিকর্ষজ ত্বরণের মানও তত কমতে থাকে। এর ফলে ভূপৃষ্ঠ থেকে যত উঠা যায় বস্তুর ওজনও তত কমতে থাকে। এই কারণে পাহাড় বা পর্বতশীর্ষে | বস্তুর ওজন কম হয়।

(গ) পৃথিবীর অভ্যন্তরে কোনাে স্থানে: ভূপৃষ্ঠ থেকে যত নিচে যাওয়া যায় অভিকর্ষজ ত্বরণের মান ততই কমতে থাকে। এর ফলে পৃথিবীর যত অভ্যন্তরে যাওয়া যায় বস্তুর ওজন তত কমতে থাকে। এ কারণে খনিতে কোনাে | বস্তুর ওজন কম হয়। পৃথিবীর কেন্দ্রে অভিকর্ষজ ত্বরণের মান শূন্য। সুতরাং পৃথিবীর কেন্দ্রে যদি কোনাে বস্তুকে নিয়ে যাওয়া যায়, তাহলে বস্তুর উপর পৃথিবীর কোনাে আকর্ষণ থাকবে না, অর্থাৎ বস্তুর ওজন শূন্য হবে।

আরো দেখুন…

  1. পৃথিবীর বিভিন্ন স্থানে অভিকর্ষজ ত্বরণ বিভিন্ন হয় কেন – ব্যাখ্যা কর।
  2. পৃথিবীতে তোমার ভর ৫০ কেজি। চাঁদে তোমার ওজন কমে যায় কেন ব্যাখ্যা কর।

Stay active and updated with the AllEducationResult.Com family to get all the information about Education and Job. Like our Facebook page to get all the updates and join our Facebook group.

শেয়ার করুন।